ক্ষমতায় গেলে বেকার যুবকদের ভাতা দেয়া হবে : হিরো আলম

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বগুড়া ৪ (নন্দীগ্রাম-কাহালু) আসনে স্থানীয় ব্যবসায়ীসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষের সঙ্গে মতবিনিময় ও পথসভা করেছেন স্বতস্ত্র প্রার্থী হিরো আলম।

বুধবার রাতে কাহালু বটতলা এলাকায় মতবিনিময় ও পথসভা করেন তিনি। মুহুর্তেই শতশত জনতার উপস্থিতিতে ওই এলাকা মিলনমেলায় পরিণত হয়।

পথসভায় জনতার উদ্দেশে হিরো আলম বলেন, অনেক লড়াই করে আমি প্রার্থী হয়ে আপনাদের মাঝে আসতে পেরেছি। আমি আপনাদের ভালোবাসায় আজ হিরো। আপনাদের দোয়া আছে বলেই বারবার হোঁচট খেয়েও নির্বাচনের মাঠে এসেছি। হিরোকে ষড়যন্ত্র করে জিরো করতে চেয়েছিল, কিন্তু হিরোকে জিরো করা এতো সহজ নয়। আমি হিরো হিরোই থেকে গেছি। আমি প্রত্যেক অসহায়-অবহেলিত গরিব পরিবারের সন্তানের স্বীকৃতি চাই। আগামী ৩০ ডিসেম্বর সম্মানিত ভোটারবৃন্দ আমাকে প্রত্যক্ষ ভোটের মাধ্যমে ভালোবাসার প্রতিফলন ঘটিয়ে নির্বাচিত করে অবহেলিত জনতার সেবা করার সুযোগ দেবেন বলে আমি প্রত্যাশা করছি।

পথসভায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, এইচ এম নজরুল ইসলাম, কর্মী রাসেল মাহামুদ, সুমন আহমেদ, এ এইচ সেলিম প্রমুখ।

এদিকে উচ্চ আদালতের আদেশে প্রার্থিতা ফিরে পাওয়ায় আলোচিত হিরো আলম বৃহস্পতিবার পর্যন্ত তাঁর প্রতীক বরাদ্দ পাননি। তবে রিটার্নিং অফিসার ফোনে তাঁর পছন্দের প্রতীক সিংহ নিয়ে প্রচারণা শুরুর মৌখিক অনুমতি দিয়েছেন বলে জানান তিনি।

জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা ও জেলা প্রশাসক (ডিসি) ফয়েজ আহাম্মদ জানান, নির্বাচন কমিশন থেকে চিঠি আসেনি। চিঠি এলেই প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হবে।

বগুড়া ৪ (নন্দীগ্রাম-কাহালু) আসনে হিরো আলমের প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীরা হলেন মহাজোট মনোনীত এ কে এম রেজাউল করিম তানসেন (নৌকা), বিএনপির মনোনীত মোশারফ হোসেন (ধানের শীষ), ইসলামী আন্দোলনের মোহাম্মদ ইদ্রিস আলী (হাতপাখা), তরিকত ফেডারেশনের কাজী এম এ কাশেম (ফুলের মালা), ন্যাশনাল পিপলস পার্টির আয়ুব আলী (আম) ও বাংলাদেশ ন্যাশনালিস্ট ফ্রন্টের জীবন রহমান (টেলিভিশন)।

We will be happy to hear your thoughts

Leave a reply

Dhaka News Time