শিক্ষার্থীদের হাফ ভাড়া: দাবি আদায়ে রাজ পথে ঢাকা কলেজ

রাজধানী ঢাকায় অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীদের যাতায়াতের প্রধান বাহন বাস। শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে অর্ধেক ভাড়া আদায়ের নিয়ম প্রচলিত থাকলেও নানা অজুহাতে তা মানে না অধিকাংশ বেসরকারি বাস কোম্পানি। আর তাই হাফ ভাড়া কার্যকরের দাবিতে বিকাশ, ভিআইপি, মিরপুর লিংক, উইনারসহ ২৭ টি বাস আটক করেছে ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থীরা।

বুধবার বেলা ১২ টার দিকে ঢাকা কলেজের শতাধিক শিক্ষার্থী ঢাকা কলেজ ক্যাম্পাসের সামনে বিকাশ, ভিআইপি, মিরপুর লিংক, উইনারসহ যেসব বাস হাফ ভাড়া নেয় না তাদের আটক করেছে। তবে শিক্ষার্থীরা বাস আটকালেও কোন ধরনের ভাঙচুর বা অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটাননি। তারা শান্তিপূর্ণভাবে বিভিন্নরকম স্লোগান দিয়ে বাসগুলো আটক করেন।

শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত কলেজ কর্তৃপক্ষ, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী এবং মালিকপক্ষের হস্তক্ষেপে দুপুর দুইটার দিকে কিছু বাস ছেড়ে দিয়ে প্রত্যেক পরিবহনের একটি করে বাস নিউমার্কেট থানার সামনে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। সেখানে থানা পুলিশের হস্তক্ষেপে বাসের মালিকপক্ষের সঙ্গে শিক্ষার্থী এবং কলেজ কর্তৃপক্ষের আলোচনা চলছে। শিক্ষার্থীরা স্লোগান দিচ্ছে- মালিক পক্ষকে হাফ ভাড়া নিতে হবে। না হলে সামনের দিন থেকে কোন বাস চলবে না।

আরো পড়ুন  যে ১৬ টি কারনে একটি স্টার্টআপ কোম্পানিতে যোগ দিবেন না

এ ব্যাপারে ঢাকা কলেজ ছাত্রলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক জামাল উদ্দীন মাহী বলেন, ‘এই রুটের সবগুলো বাস শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে হাফ ভাড়া নেয় না। তাই শিক্ষার্থীরা বিকাশ, ভিআইপিসহ ২০টির বেশি বাস আটকে রেখেছে। আমরা শিক্ষার্থীদের দাবির সঙ্গে একমত। তবে এক্ষেত্রে কোন ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা যেন না ঘটে সে ব্যাপারে আমরা সজাগ রয়েছি।’

এ বিষয়ে ঢাকা কলেজের অধ্যক্ষ মোয়াজ্জেম হোসেন মোল্লা বলেন, ‘পরিস্থিতি এখন স্বাভাবিক। এই রুটের বাসগুলো সরকারি নির্দেশ অমান্য করে হাফ ভাড়া নেয় না। অনেক সময় আমার শিক্ষার্থীদের সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করে। তাই শিক্ষার্থীরা প্রতিবাদ করেছে। আমি সকল বাস মালিকদের অনুরোধ করবো তারা যেন হাফ ভাড়া নেয়।’

dhaka college bus2

নিউমার্কেট থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. আতিকুর রহমান বলেন, শিক্ষার্থীরা শান্তিপূর্ণ উপায়েই আন্দোলন করেছে। তাদের হাফ ভাড়ার বিষয়টি নিয়ে মালিকপক্ষের সঙ্গে কথা হয়েছে। বর্তমানে যান চলাচল স্বাভাবিক।

প্রায় বাসেই শিক্ষার্থীদের সঙ্গে ‘হাফ ভাড়া’ বা অর্ধেক ভাড়া নিয়ে হেল্পারদের নিয়মিত তর্ক-বিতর্কের ঘটনা ঘটে। বাসের হেল্পার-কন্ডাক্টররা দাবি করেন, অর্ধেক ভাড়া নেওয়া নিষেধ রয়েছে কোম্পানির পক্ষ থেকে, তাই তারা অর্ধেক ভাড়া নিতে পারবেন না। রাজধানীর বেশিরভাগ বাসের দরজার উপরে বা পাশেই লেখা রয়েছে, ‘হাফ পাশ নাই’ অর্থাৎ শিক্ষার্থীদের অর্ধেক ভাড়ায় যাতায়াতের সুযোগ নেই।

আরো পড়ুন  ভাবছি রোবটিক্স টা ছেড়ে দিব, আমার জন্মটাই একটা ভুল দেশে

তবে এর আগে ২০১৭ সালে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্পোরেশনের (বিআরটিসি) তৎকালীন চেয়ারম্যান ফরিদ আহমেদ ভূঁইয়া শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে অর্ধেক ভাড়া নিতে কোনো বাস কোম্পানি যদি অস্বীকৃতি জানায়, তাহলে অভিযোগ দিতে আহ্বান জানিয়েছিলেন। সব বাস কোম্পানিকেই শিক্ষার্থীদের কাছে অর্ধেক ভাড়া নিতে নির্দেশনা দেওয়া রয়েছে বলেও জানান তিনি।

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরও একাধিকবার বলেছিলেন, সরকারি পরিবহন বিআরটিসিসহ অন্য বাসে শিক্ষার্থীরা হাফ ভাড়া দেবে। তাদের কাছ থেকে বাসগুলো হাফ ভাড়া না নিলে সঙ্গে সঙ্গে অভিযোগ করবেন। ব্যবস্থা নেয়া হবে।

তারপরও নির্বিকার বাস মালিক পক্ষ। তবে এই সমস্যা সমাধানে সরকারি প্রজ্ঞাপন জারি করে সমস্যা সমাধানের দাবি জানিয়েছেন যাত্রী কল্যাণ সমিতির মহাসচিব মোজাম্মেল হক।

We will be happy to hear your thoughts

Leave a reply

Dhaka News Time