জার্মানিতে চালু হলো পুতুলের পতিতালয়

জার্মানির ডর্টমুন্ডে তৈরি করা হয়েছে সেক্স ডল বা যৌনপুতুলের একটি পতিতালয়। দক্ষিণ ডর্টমুন্ডের এক নিভৃত পল্লীর এই পুতুলের পতিতালয়ের নাম বোরডল। গত বছর থেকে চালু হয়েছে জার্মানির প্রথম এই পুতুল পতিতালয়।

এছাড়া জাপানেও রয়েছে সেক্স ডলের পতিতালয়। বার্লিনে আছে, সেক্স ডল এসকর্ট সার্ভিস। পতিতালয়ে থাকা এ পুতুলগুলো সিলিকন দিয়ে তৈরি।

জার্মানির এই পুতুল পতিতালয়ে আছে সিলিকনের তৈরি ১২টি পুতুল। এই ১২টি পুতুলের মধ্যে একটি পুরুষ। আর একটি পুতুলের স্তন ও পুরুষাঙ্গ দুটিই আছে। ঘণ্টায় ৮০ ইউরো খরচ করে এমন একটি ঘরে আগ্রহীরা তাদের যৌনাকাঙ্ক্ষা মেটাতে পারেন।

আরো পড়ুন  ঢাবি’র ৫ শিক্ষার্থীকে পেটাল নীলক্ষেতের বই ব্যবসায়ীরা

sexdoll

বোরডলের প্রতিষ্ঠাতা ৩০ বছর বয়সী এভিলিন শোয়ার্ৎস। তিনি যখন একটি পতিতালয় প্রতিষ্ঠা করতে চেয়েছিলেন তখন জার্মান ভাষাভাষী যৌনকর্মী জোগাড় করতে গিয়ে বেশ বেগ পেতে হচ্ছিল। পরে জাপানের একটি পুতুল পতিতালয়ের মডেল দেখে অনুপ্রাণিত হয়ে এ পুতুল পতিতালয় তৈরি করেন তিনি।

চীন থেকে এসব পুতুল আনেন এভলিন শোয়ার্ৎস। যার একেকটিতে খরচ পড়েছে এক থেকে দুই হাজার ইউরো। একেকটা পুতুল ৬ মাস পর্যন্ত সেবা দিতে পারে। এভলিনের একজন সহকারী আছেন যিনি পুতুলগুলো পরিষ্কার করেন।

আরো পড়ুন  ইফতারির ৫৫ মিনিট পরই সাহরি!

sexdoll

পুতুলগুলোর মাধ্যমে যাতে কোনো রোগ না ছড়ায় তার জন্য যত্ন নেয়া হয়। প্রতিদিন ৫ থেকে ১২ জন খদ্দের আসেন এই পুতুল পতিতালয়ে।

শুধু এসব সিলিকন পুতুলই নয়, বুদ্ধিমত্তাসম্পন্ন রোবটের কথাও ভাবা হচ্ছে যৌনকাজে ব্যবহারের জন্য। তবে রোবোটিক্সের সঙ্গে যুক্ত বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এখনো এর সময় আসেনি। ডি ডব্লিউ।

We will be happy to hear your thoughts

Leave a reply

Dhaka News Time