বিসিএস এবং অন্যান্য সরকারী চাকুরির ভাইভা প্রস্তুতি - Dhaka News Time

বিসিএস এবং অন্যান্য সরকারী চাকুরির ভাইভা প্রস্তুতি

বিসিএস এবং অন্যান্য সরকারী চাকুরির ভাইভা প্রস্তুতিঃ
৩৪ তম বিসিএস লিখিত পরীক্ষার ফলাফল ইতোমধ্যে ফাঁস হয়েছে! বেশ কয়েকজন ছোট ভাইবোন ভাগিনা-ভাতিজি ফোন ইনবক্সে জানতে চেয়েছেন ভাইভা পরীক্ষায় কেমনে কি?

ভাগিনা ভাতিজিদের আগেই বলে দেই, ফ্রম মাই এক্সপিরিয়েন্স বিদ্যা বুদ্ধির চেয়ে ইটস মোর ডিপেন্ডেন্ট অন লাক। কথা শুনে শুরুতেই মন খারাপ করলে বাকিটুকু না পড়ার জন্য ম্যালা ধন্যবাদ। এটা মাথায় রেখেই পড়া শুরু করেন বাকিটুকু মামুর দোয়া। মোটামুটি সব বিষয়ে কিছু কথা বলার চেষ্টা থাকবে, বাকি স্পেসিফিক কিছু জানার থাকলে মামুকে কমেন্টসে আস্ক করলেই বলে দেব।

প্রথমেই বন্দনা করি ড্রেস মেকাপের নামঃ এটা বেশ ইম্পোরটেন্ট। ভাগিনারা ভাইভা পরীক্ষার পাঁচ-সাত দিন আগেই মাথার চুল কাটা চাই। কাটতে মন না চাইলে আমার কাছে আসবেন আমি কাঁচি দিয়ে কেটে দেব ঘ্যাচ ঘ্যাচ করে। এক্সামের দিনে সক্কাল বেলায় শেইভ মাস্ট। এটা অবশ্য আমি করিয়ে দেব না। ভাইভার সময় শীত শীত ভাব থাকলে ভাল দেখে কাটানো স্যূটেড বূটেড হয়ে যাবেন। টাই গলায় ফাসানো চাই। রংচঙ্গা না হওয়া বাঞ্চনীয়। গরম থাকলে শার্টের সাথে টাই হলেই চলবে। জুতা বেল্ট ঘড়ি জুতসই চকচকে হলেই চলবে।

ভাগ্নী-ভাতিজিরা শাড়ি বা অন্য কোন রুচিশীল পোশাক পড়লেই চলবে। মেকাপ, গয়না-গাট্টি কম হলেই ভাল। এত কিছু বলার উদ্দেশ্য ইউ মাস্ট ফিল ইজি, কম্ফোর্টেবল এন্ড কনফিডেন্ট অ্যাট দ্যাট ডে। এই পরীক্ষার নির্দিষ্ট দিনে যত কম সিরিয়াস হওয়া যায় ততই ভাল। উসাইন বোল্টকে দেখেছেন না, দৌড় শুরু হওয়ার আগে, কানের মধ্যে হেডফোন দিয়ে হিপহফ মিউজিক শোনে। রিল্যাক্স।

প্রিপারেশনঃ
একটা খাটি সত্য কথা বলি। প্রিলি রিটেন এ প্রশ্ন কমন পড়ুক আর না পড়ুক ভাইভাতে কিন্তু পড়ে। আপ্নের খালি চোখ কান নাক মুখ খোলা রাখতে হবে। কমন না পড়লেও কোন সমস্যা নেই।

সাধারণ জ্ঞানঃ
স্বাধীনতার ইতিহাস, মুক্তিযুদ্ধ, বংগবন্ধু, ৬ দফা, সাতই মার্চের ভাষণ, স্বাধীনতার ঘোষণা, ৭০ এর পর থেকে ৭৫ পর্যন্ত সকল সরকারের মন্ত্রীসভার সদস্যদের নাম ঝাড়া মুখস্ত। দাড়ি কমা সহ। রেগুলার পেপারতো পড়তেই থাকবেন। বেশী ইম্পোর্টেন্ট ইন্সিডেন্টগুলো পারলে নোটবুকে লিখে রাখবেন। পরীক্ষার দিনের বাংলা আরবির দিন তারিখ মনে রাখবেন। সেদিনের পত্রিকার হেডলাইনগুলো দেখে নেবেন। বাংলাদেশের সাথে বেশী রিলেটেড দেশ, আন্তর্জাতিক সংগঠঙ্গুলোর নাড়ি-ভূড়ি উল্টিয়ে পালটিয়ে দেখে রাখবেন। এক্ষেত্রে আপনার প্রথম পছন্দ আপনার ভাইভার গতিপথ নির্ধারণ করে দিতে পারে। এ বিষয়ের খুটিনাটি, অর্গানোগ্রাম,কাজ-কাম, সুবিধা,ঝুটঝামেলা জানার চেষ্টা শেষদিন পর্যন্ত করবেন। তবে চেষ্টা থাকবে যাতে আপনার গতিপথ যাতে আপনি নিজেই নিয়ন্ত্রণ করতে পারেন। এমন উত্তর দিবেন যাতে প্রশ্নকর্তা আপনার জ্ঞানের অধিক্ষেত্রের মধ্যেই চলে আসে। রিটেন প্রিলিতে পড়া বিষয়গুলো আবার একটু দেখে নিতে পারেন। ম্যাপ-মানচিত্র নিয়ে একটু মাথা খাটাবেন।

নো দাইসেলফ?:
আপনার প্রথম পছন্দ কেন আপনার প্রথম পছন্দ? অমুক বিষয় পড়ে, ঝমুক চাকুরি ছেড়ে, তমুক চাকুরী ক্যান করতে চান? মনে হয় ঘুষ খাইতে চান? আপনার জেলার, উপজেলার বিশ্ববিদ্যালয়ের, হলের ইতিহাস, ইতিহাস বিখ্যাত কুখ্যাত ভালমানুষ মন্দমানুষ নিয়ে একটা ধারণা রাখেন। কাজে লাগবে। আপনি যে বিষয়ে আন্ডারগ্র্যাড, গ্র্যাড করেছেন সে বিষয়ের বেসিক টপিকগুলো আবার একটু দেখে নিন না। আপনার নামের অর্থ কি, এই নামে বিখ্যাত কে ছিলেন কে আছেন, কে কে আসবেন ইত্যাদি ইত্যাদি। সর্বশেষ কোন বইটি পড়েছেন, ঘটনা কি? তবে বইমার্কা উত্তর না দিয়ে নিজের মত করে ডিফারেন্ট ভদ্রগোছের একটা উত্তর এসব প্রশ্নে বেশি গ্রহণযোগ্য।

ইংরেজিঃ
আমার মাইক্রোবায়লজি বিভাগের প্রিয় ছোটভাই অহন একদিন বলেছে, বাংলাদেশ হইল মজার এক জায়গা। এইখানে আর কিছু না জেনে শুধুমাত্র ইংরেজী ভাল জানলেই ভাল ক্যারিয়ার নিশ্চিত। কথাটা বেশ খাসা। দুবার শ্রীলঙ্কায় গিয়েছিলাম, দেখি মুদি দোকানদার, সবজিওয়ালা যেই পটাস পটাস ইংরেজী বলে তা শুনলে আমাদের অনেক ডাকসাইটে বড়কর্তারাও লজ্জাই পাবেন। তাই বলছি, বাংলাদেশে ভাল ক্যারিয়ারের জন্য স্ট্যন্ডার্ড ইংরেজী জানা মাস্ট না হলেও এটা আপনাকে সবজায়গায় আনফেয়ার এমাউন্ট অফ এডভান্টেজ এনে দেবে । ভাল ইংরেজি লিখতে ও বলতে পারলে ইউ আর অল্রেডি ফিফটি পার্সেন্ট এহেড। এই ধরেণ বিসিএস ভাইভায় সুযোগ বুঝে ঠাস ঠাস করে কিছু ইংরেজী ঝেড়ে দিলেই ভাইভাওয়ালারা মনে করবেন, এই পোলা ব্যাপক ইস্মার্ট, জ্ঞান বিজ্ঞানের সকল শাখায় মনে হয় তার বিরাট দক্ষতা। এটা আমাদের কলোনিয়াল সেন্টিমেন্ট বা যে কারণেই হোক না কেন, আসল ব্যাপার হচ্ছে সিংহ ভাগ পরীক্ষার্থীরা এটা পারে না। যে পারে সে অযথায় আনফেয়ার এডভান্টেজ পায়!! (আগের লেখার কপি)

এক্ষেত্রে আমার আপনার উচিৎ মোটামুটি ইংরেজি বলতে পারা। মওকা পেলেই ঝেড়ে দেয়া। তয় যারা না পারেন তাদের অত হা-পিত্যেশ করার কিছু নেই। ভাব মারার জন্য বলছি না, যারা চাকুরিটা পেয়েছেন তাদের অনেকেই সেটা পারেন না। ভাইভার জন্য যে কয়দিন সময় আছে সেকয়দিনে চেষ্টা করলে প্রয়োজনীয় চলনসই ইংরেজি শেখা যাবে। ডেস্ক্রাইব ইয়োরসেলফ, ডেস্ক্রাইব ইয়োর ইডুকেশন ব্যাকগ্রাউন্ড, হোয়াই — ইজ ইয়র ফার্স্ট চয়েস? হোয়াট ইউ উইল ডূ ইন দ্যাট – সিচুয়েশন, টেল মি এবাউট ইয়োর ডিস্ট্রিক্ট ইত্যাদি বিষয়গুলো মোটামুটি ঝড়ঝড়ে হয়ে যাবেন। বাকিবিষয়গুলো যতদূর আগানো যায়।

কি বই পড়বেনঃ
পেপার পত্রিকা, কারেন্ট এফেয়ার্স টাইপের কোন কিছু, বাজারে ভাইভার জন্য প্রচলিত যা কোন জনপ্রিয় বই । ক্যাডার ফার্স্ট চয়েস ভিত্তিক বই। ভাইভা শুরু হলে দেখবেন নীলখেতে গত অমুক থেকে তমুক দিন পর্যন্ত ভাইভার প্রশ্নোত্তর সম্বলিত চটি টাইপের বই পাওয়া যায়। সেটা থেকে বেশ কমন পড়ে!! বংগবন্ধুর ভাল কোন জীবনীবই, স্বাধীনতার ডিটেইলস কোন বই ইত্যাদি ইতাদি ইত্যাদি।

কোচিং?
হ করলে করতে পারেন। তয় আমি করি নাই। এইটা নাকি কনফিডেন্স বাড়ায়। বাড়ালে করা যায়। কোনটা ভাল কোনটা মন্দ ইতরবিশেষ জানা নাই।

ভাইভার সময়ঃ
এতক্ষণ যা বললাম সব অবান্তর কথা। এবার কাজের কথায় আসি। ভাইভা জিনিসটা আসলেই ভাইবাই দিতে হয়। ওই সময়টা মাথা পরিষ্কার থাকা জরুরী। আগেরদিন ৭-৮ঘন্টা ঘুম। একঘন্টা আগেই জায়গামত পৌছানো। টেনশন জিনিসটা একদম মাথা থেকে দূরে। সব পারতে হবে এ কথা যে বলবে তাকে মাইর। অত পারাপারির দরকার নাই। মোটামুটি পারলেই হল।
কনফিডেন্স, এপ্রোচ এটিচ্যুড হল আসল ব্যাপার। কি কতটুকু পারলেন সেটা দিনশেষে নিতান্তই গৌণ। একেক বোর্ড একেক জিনিস চায়। কে কি চায় কে জানে? আপনার কাজ আপনি করবেন। না পারলে বলবেন সরি, স্যার জানা নেই/মনে নেই ।

বন্ধুদের জন্য শেয়ার করে দিন

About Dhaka News Time

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

error: © সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। এই ওয়েবসাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি ।